পৌরাণিক কাহিনি বা মিথ (Myth)-এর সংজ্ঞা ও বৈশিষ্ট্য লেখাে। ইতিহাস ও পৌরাণিক কাহিনির পার্থক্যগুলি তুলে ধরাে।

পৌরাণিক কাহিনি বা মিথ


সংজ্ঞা: সৃষ্টির আদিমকালে অপরিণত বুদ্ধির মানুষ যে সমস্ত ধর্মীয় অলৌকিক কল্পকাহিনি রচনা ও প্রচার করে তাকে পৌরাণিক কাহিনি বা লােকপুরাণ (Myth) বলে। লােকপুরাণগুলি লােকসমাজের দ্বারা মৌখিকভাবে সুপ্রাচীন অতীত থেকে রচিত হয়ে আসছে। Myth শব্দটি এসেছে গ্রিক শব্দ 'Muthos' থেকে।


বৈশিষ্ট্য-সাধারণ


  • চরিত্রগত: লােকপুরাণে কেন্দ্রীয় চরিত্র হল অলৌকিক দেবদেবীগণ। এতে কাহিনির মূল চরিত্র ঈশ্বর বা ঐশ্বরিক শক্তির ওপর আরােপিত।


  • কাহিনিগত: পৌরাণিক কাহিনিগুলি মূলত ধর্মীয় বিশ্বাস, ধর্মীয় সংস্কার, রীতিনীতি, পূজা-প্রার্থনা, ধর্মোৎসব-উপাচার ইত্যাদির ভিত্তিতে গড়ে ওঠে। বিশ্বসৃষ্টির রহস্য, দেবতা-মানবের জন্ম, মহা- প্লাবন, দেবতা-দানব-মানবের দ্বন্দ্ব, জন্ম-মৃত্যু-আত্মা-পুনর্জন্ম- অবতার, স্বর্গ-নরক, পাপপুণ্য সবই হল এর বিষয়।


  • শ্রেণিবিভাগগত: পৌরাণিক কাহিনি বেশ কয়েকটি শ্রেণিতে বিভক্ত যথা- [a] দৃষ্টিতত্ত্মূলক, [b] মানুষের উদ্ভবমূলক, [c] দৃষ্টিমূলক, [d] প্রলয়সূচক, [e] আগুনের অধিকার বিষয়ক, [f] সংস্কৃতির বিকাশ বিষয়ক, [৪] চন্দ্র সূর্য গ্রহ নক্ষত্র কেন্দ্রিক, [h] সামাজিক বিধি বিধান বিষয়ক, [i] ধর্মাচার সম্পর্কিত, [j] সংস্কৃতি ধাতা (Culture Hero) বিষয়ক প্রভৃতি।


  • বিশ্বজনীনতাগত: বিশ্বের বিভিন্ন দেশের পৌরাণিক কাহিনিগুলির মধ্যে বিশ্বসৃষ্টিগত ধারণা, মহাপ্লাবনগত বর্ণনা, দেবদেবীর সৃষ্টিগত ধারণা প্রভৃতির ক্ষেত্রে বর্ণনার মিল লক্ষ করা যায়।


  • উৎসগত: বিশ্বের অধিকাংশ পৌরাণিক কাহিনিগুলির উৎসের সন্ধান মেলে মহাকাব্যগুলিতে এবং অন্যান্য উপাদানে। এমন বিশ্বের পাঁচটি প্রাচীনতম মহাকাব্য হল গিলগামেশ, রামায়ণ, মহাভারত, ইলিয়াড ও ওডিসি।


ইতিহাস ও পৌরাণিক কাহিনির পার্থক্যসমূহ


ইতিহাস


  • অতীত দিনের কোনাে ঘটনার নিরপেক্ষ, সঠিক, তথ্যপূর্ণ, কালানুক্রমিক ধারাবাহিক বিবরণই হল ইতিহাস।


  • মানুষ হল এর মূল চরিত্র। ইতিহাস মানবিক কর্মকাণ্ডের ওপর আরােপিত। এর মূল চরিত্রটি মানুষের বাস্তবধর্মী সত্য ঘটনার রূপকার। অন্যান্য চরিত্রগুলি বাস্তবধর্মী হয়ে থাকে।


  • এর বিষয় হল দেশ ও কালের মধ্যে সীমাবদ্ধ মানবজীবন বা মানব সমাজের কাহিনি। ইতিহাসে বিষয় হিসেবে স্থান পায় মানব সমাজ, সভ্যতা ও সাম্রাজ্যের উত্থান-পতনের কাহিনি রাজনীতি, অর্থনীতি, ধর্ম, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান প্রভৃতি।


  • ইতিহাসের এক অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল কালপঞ্জি। এতে বর্তমান সময়ের নিরিখে অতীত ঘটনাবলির সালভিত্তিক ধারাবাহিক বর্ণনা থাকে।


  • প্রকৃতিগত বিচারে এর কাহিনি বা ঘটনাবলি বাস্তবধর্মী। অতীত মানবসমাজের নানা গুরুত্বপূর্ণ সমস্টিগত ও ব্যক্তিগত উদ্যোগ, কর্মকাণ্ড প্রভৃতি একে ঐতিহাসিক চরিত্র দান করে।


পৌরাণিক কাহিনি


  • সৃষ্টির আদিকালে অপরিণত বুদ্ধির মানুষ যে সমস্ত ধর্মীয় অলৌকিক কল্পকাহিনি রচনা ও প্রচার করে, তাকে পৌরাণিক কাহিনি বলে।


  • অলৌকিক দেবদেবীরা এর মূল চরিত্র। এর মূল চরিত্রটি ঈশ্বরের অলৌকিক লীলাকাহিনির রূপকার। অন্যান্য চরিত্রগুলিও অলৌকিক বা কাল্পনিক হয়ে থাকে।


  • ধর্মভিত্তিক নানা বিষয় এতে স্থান পায়। বিশ্ব সৃষ্টির রহস্য, দেবতা-মানবের জন্ম, মহাপ্লাবন, দেবতা-দানব-মানবের দ্বন্দ্ব, জন্ম-মৃত্যু-আত্মা-পুনর্জন্ম-অবতার, স্বর্গ নরক-পাপ-পুণ্য সমস্ত কিছুই হল এর বিষয়।


  • এতে প্রক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন পৌরাণিক ঘটনার সমাবেশ লক্ষ করা যায়। বর্তমান সময়ের নিরিখে এতে পৌরাণিক কল্পকাহিনির সালভিত্তিক ধারাবাহিক বর্ণনা থাকে না।


  • প্রকৃতিগত বিচারে এগুলি মূলত ধর্মভিত্তিক। এর কাহিনিগুলির মধ্যে অতীত দিনের ধর্মীয় বিশ্বাস, ধর্মীয় সংস্কার রীতি নীতি, পূজা-প্রার্থনা, ধর্মোৎসব-উপাচার প্রভৃতি একে পৌরাণিক চরিত্র দান করে।